Tuesday, December 31, 2013

Surjo Uthba ( সূর্য উঠবে )


Akta Mon ( একটা মন )


আমি যখন তোমার পাশে থাকবো ভেবেছিলাম
তখন তুমি অন্য কাউকে ভাবতে;
তাই নির্ঘুম কাটতো রজনী।
একটু ভালবাসা

আমাকে সর্বদা নিয়ে গেছে
তোমার আকাশচুম্বী প্রাসাদে।
তবু তুমি ধরা দাওনি ভালবাসার টানে।

আর কতো অপেক্ষা,
আর কতো পরীক্ষা
আমার জন্য ওত পেতে আছে?
হ্যাঁ, সময় এসেছে তোমার,
তাই খুঁজেছ পুরানো ঠিকানায়।
কিন্তু সেই ঠিকানা তো বিক্রি হয়ে গেছে
দেনার দায়ে!
আমি ঠিকানাবিহীন পথের সন্ন্যাসী,
কোন অবশিষ্ট্ অংশ নেই-
আছে শুধু একটা মন
এই বুকের ভিতর।

Friday, December 27, 2013

Akta Sopno ( একটা স্বপ্ন )

একটা স্বপ্ন
রাতের ঘুমকে তাড়া করে ফেরে।
কুয়াশার আবছা
কখনো ঘন অন্ধকার এই রাত
সেই স্বপ্নটাকে উষ্কে দেয়;

ঘুমহীন দু'টি চোখের পাতায়
জুড়ে বসে এক শান্ত ঝিরি ঝিরি
শীতল হাওয়া-
একটু আদর পেলেই
ঘুমিয়ে পড়ে মিনি শিয়রে
এক অদ্ভুত আবেসে।

স্বপ্নটা যেন বিরতিহীন
ঘুরে ফিরে দরজায় টোকা দিয়ে যায়।
এই স্বপ্ন শুধু-
একটি কথা বলে,
"কে আসবে জীবনে"।

স্তব্ধ হয়ে আসে রাত
তবুও ঘুম নেই
একটা স্বপ্ন তাড়া করে ফেরে বারেবার।



Andho Prem ( অন্ধ প্রেম )


আমি অন্ধ
কিছুটা শিরির মতো,
আবার কিছুটা মজনুর মতো
ভালবাসায়-
যখন তুমি পাশে থাকো
আমার হৃদয়ে ঢেউ ওঠে
সীমাহীন প্রেমের অসীম সাগরে।

শুধু তোমার জন্য-
কারো পানে চাইলে তুমি-ভেবে
ডেকে ভুল করি,
কাছে আসতে চাই।
কিন্তু না, পারি না!
তুমি ছাড়া সব-ই মায়া আর ভ্রম।

তোমার চাহনি- বরই পাতা,
ঠোঁঠ- শিমুল-পলাশ
আর হাসি- সোনা-রোদ্দুর কদম ফুলের মতো।
তাই তাদের দিকে চাইতে পারি না,
তুমি ছাড়া কাউকে ভাবতে পারি না।
তুমি শুধু আমার স্বর্গরানী অপ্সরা
জোছোনার আলো।

Monday, December 23, 2013

A Kemon Valobasa ( এ কেমন ভালবাসা )



আমি ভালবাসি কথাটি বলেও বোঝাতে পারিনি,
মনের গহীনে জায়গা কিনতে চেয়েও পারিনি,
আমি কাঁটার আঘাতে ক্ষতবিক্ষ হয়েছি শুধু,
শুকনো মরুর নিরস বালুতে জলের সন্ধান করেছি,
কোন অধিকার নেই কি কাছে আসার?

আমি হেয়ালির বিষন্ন বস্তু,
আমি উপহাসের বিলাস সামগ্রী-
ঐ হৃদয়কে স্পর্শ করতে পারিনি কখনো।

তবে- কোন একদিন বলেছিলে,
পথিক, তোমার বাড়ি কোথায়?
ভুলিনি-
শীতের কুয়াশায় মেঠপথ পাড়ি দেওয়া,
বর্ষার কাদাজলে কদম,
চৈত্রের দুপুরে আমের মুকুল
সবই এনেছি তোমার জন্য;
কিন্তু এ-মনের ভাষা বুঝেও না বোঝার ভান করেছ।
কখনো আমার অভাবে কাঁদনি,
কখনো আমায় মন থেকে ডাকোনি।
তোমার ভাবনার দুয়ারে আমার ছবি ভেসে ওঠেনি
আসতে পারিনি তোমার স্মৃতির পাতায়, স্বপ্ন গুলোতে।
এই অজানা পৃথিবীর রিক্ত মানুষটি
এখনো খুঁজে চলেছে ভালবাসার পথ।




Sunday, December 22, 2013

Vul Vangba ( ভুল ভাঙ্গবে )


অনেক আশা নিয়ে রাত জেগেছি
কওনি কথা,
নীরবে রয়ে গেলে একাকী-
কেমন তোমার ভালবাসা
বুঝিনা আমি এই ব্যথাতুর হৃদয়ে?
কি তোমার চাওয়া পাওয়া
তাও বুঝি না আমি।
শুধু তোমাকে চাই এ-মনের গভীরে-
উষ্ণতা আর আদরে আদরে
তুমি সুন্দর, তুমি নিত্য।

আমার বেদনার সুরে
তোমার সঙ্গিতের মুর্ছনা,
পাখির গান-
উপর থেকে ঝরে পড়া ঝর্ণা
পড়েছে নদীতে
আর নদী চলেছে সাগরে।
শুধু তুমি ছুটে চলেছো পিছনে
অহংকারের লাল গোলাপ হাতে পেয়ে।
সকাল হলে দেখো!
তোমার ভুল ভাঙবে ঠিকই।

Ami Tomar ( আমি তোমার )


আমার হাতে অনেক শিউলি
তোমায় দেব বলে
বাগান থেকে কুড়িয়ে এনেছি
নীরবে দু'পা ফেলে।
তুমি কি একেলা?
স্বর্ণালী, শেফালি
বনলতা, সেজুতি
ওরা কি আসেনি খেলতে?

নিয়ে নাও হাত পেতে
এই কটি বাদাম সাথে-
খোঁপায় গুঁজে নাও ফুল।


ফিরে যাব,
বকুল রয়েছে অপেক্ষায়
সবুজ পাতার শাখায় শাখায়-
আমায় ডেকো না!
আমায় ছুঁয়ো না!
আমিতো রয়েছি তোমার
যতো দূরে যাইনা কেন চলে।


Wednesday, October 2, 2013

Gohin Rater Majhe ( গহীন রাতের মাঝে )

গহীন রাতের মাঝে

গহীন রাতের মাঝে
নক্ষত্ররা উঁকি দিছে বেদনার সাজে।
প্রিয়ার কন্ঠে সৌখিন সঙ্গিতে
আকুল হিয়া দুলিয়া উঠে জোনাকির পলকে।
কতক আলো কতক আঁধার
ভালবাসিতে মন ছুটিছে অনন্ত ভঙ্গিতে।

এলো চুল খোপাহীন রজনীতে
তীর ছুড়ে মারিতেছে হাসিতে হাসিতে-
রূপেতে ছন্নছাড়া, হয়েছি বিবাগী
কূলেতে কালিমা লেপিয়া হয়েছি অনুরাগী।

হেথা হারায়ে খুঁজিছি তোমারও অক্ষিযুগল তারকায়-
মম পটের পূর্ণরূপ রয়েছে দাঁড়ায়,
ক্ষণিকের পাখি!
কে তুমি করিছো ডাকাডাকি?
বেঁড়াজাল ছিন্ন হয় তব পানে চাইয়া
আমারে সঙ্গে লও আচল ভরিয়া।



Saturday, September 21, 2013

Akaki Pothik ( একাকী পথিক )

একাকী পথিক


আমার কি আছে আর কিবা দেব তোমায়
আমার কিছুই নেই সঞ্চিত,
আমি রিক্ত, প্রেমের বেদনা অশ্রুতে সিক্ত।
বঞ্চিত সকল সুখ থেকে;
তাই প্রেমের চিন্তা করিনা-
ভালবাসা সেতো যন্ত্রনা।
সবাই ছল-চাতুরীতে মেতে উঠেছে,
কোন আসল হিরার সন্ধার মেলেনা,
তাই প্রেমের কথা ভাবি না।

অনেক ভেবেছি,
আনেক দেখেছি,
আবশেষে আমি নিজেই লজ্জিত
যতটুকু রেখেছিলাম জমা,
তা এখন অশ্রুতে হয়েছে পরিণত;
আমি ঘৃণিত, আমি কলুষিত
সর্ব সত্ত্বা জুড়ে, মূল্যহীন বালুকা।

ভালবাসা-আদর মায়া
আমায় ছেড়ে চলে গেছে বহুদূর,
তা আর ছুঁয়ে দেখে না স্বপ্ন মায়ায় মধুর;
শুধু আঁখি পাতায় অশ্রু ঝরে সারা-দিন-দুপুর।
তাই লাঞ্চনায় জর্জরিত,
সর্বত্র অবহেলিত
একা-নিঃস্ব-অসহায় জীবনের একাকী পথিক
একটু আলোর অপেক্ষায় দিন গুনে যাই।




Tuesday, September 17, 2013

Mukti Dilam ( মুক্তি দিলাম )

মুক্তি দিলাম

আমি সহস্র রজনী জেগেছি
তোমার ভালবাসার জন্য,
অসংখ্য তারা গুনেছি
এক একটি করে জোছনা আলোতে;
দু'চোখ জুড়ে ঘুমের পশরা নেমে এলও
তোমায় নিয়ে স্বপ্নে মেতেছি।

কিন্তু,
তুমি ক'টি রাত জেগেছো,
ক'টি ফুলের মালা গেঁথেছো আমার জন্য,
বলতে পারবে কি?
শুধু মুখ লুকিয়ে চলে যাও
দূরে কোনখানে।

আমি হিমালয় থেকে নূড়ি-পাথর এনেছি,
পাহাড়ের বুক চিরে সুড়ঙ্গ কেটেছি,
সমুদ্র থেকে ঝিনুক-মুক্তা কুড়িয়ে দিয়েছি-
যার কোনটাতে তোমায় কেউ দেখেনি।
সব ভাল আমিই বেসে গেলাম-
অবশিষ্টটুকুও তুমি বাসনি আমায়।

তাই আজকে তোমায় মুক্তি দিলাম
দু'চোখের অশ্রুজলে।
আজ থেকে তুমি মুক্ত
আর আমি অজানায়....।



Saturday, September 14, 2013

Valobasa ( ভালবাসা )

ভালবাসা


স্বপ্নের ডানা মেলে
       উড়ে চলে গাঙচিল
কখনোবা রোদ্দুর কখনোবা মেঘে
     মাঠ-প্রান্তর অনাবিল।

এলোমেলো হাওয়া দোলে
       তরু-ছাঁয়া শিখরে
দু'চোখ আঁকে, মনে ছবি ভাসে
      তোমার ঐ পূর্ণিমা অধরে।


আবার ফিরে আসে
         ঘুরে ঘুরে মনের মাঝে
কতনা স্মৃতির উত্তাল ঢেউগুলো
      সন্ধ্যা তারার একাকি সাঁঝে।

এইতো সুখের পরশ মেলে
        দু'জনার হৃদয়ে
বাঁধা-বিপদ ভেঙে যায়, অতীতের মোহনায়
       দু'জনে ভালবাসে, দু'জনারে জ'য়ে।


Friday, September 13, 2013

Protikkhar Prohor ( প্রতিক্ষার প্রহর )

প্রতিক্ষার প্রহর

সত্যি, আমি তোমায় চিনতে পারিনি, সেজুতী।
তোমার কথার অর্থ আমি বুঝিনি,
কেন এত ভালবাসা সাগরের প্রতি।
আমার অনেক দিনের গড়ে ওঠা ভালবাসায়
তুমি নিরাশার ঢেউ তুললে,
তোমার নিথর চোখের রূপটা
আকাশের বুক চিরে দেখালে
বিদ্যুতের ঝলসানো উত্তাপে।

তুমি সেদিন বলেছিলে, সেজুতী
গাঁয়ের আম গাছটি বড় হয়েছে গেছে,
যে বকুলের ডাল ছুঁয়ে উচ্চতা মেপেছি
তার উচ্চতা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে,
আমাদের বয়সটাও বেড়ে উঠেছে,
চলো, শুভদিনে মিলন মালা পরাই!
সে কথা তুমি তো ভুলে যাওনি।


আমি এখনো ভাবি তোমার কথা,
পুরোনো দিনের লুকোচুরি কথা,
কাঁশ ফুলের কথা;
তবে তোমার দেখা পেতে আমায়
মাঝরাতে অন্যে ঘুম ভাঙাতে হয়।
তুমি দেওয়াল তুলেছো,
এপার-ওপারের-
আমি ভাঙতে চাই না
তোমার নিজ হাতে গড়া দেওয়াল।

সেজুতীদের বাড়ির উঠানটা পরিস্কার ছিল,
আম গাছটি বেশ উচু হয়েছে,
কিন্তু সেজুতী সেখানে আর নেই,
সেজুতী মেহেদী রাঙা হাতে
সাগরের বুক চিরে চলে গেছে।

কিন্তু ভুলটা কোথায়, সেজুতী?
পেয়ারা আনতে কখনো তো ভুলিনি,
দেখা করতে এক বিন্দু দেরিও হয়নি,
তবেব অভিমানটা কোথায়,
জানতে পারলাম না।
সেজুতী, আমি তোমার প্রতিক্ষায় বসে আছি
সাগর পাড়ে.....!


Wednesday, September 11, 2013

Khondito Sotta ( খন্ডিত স্বত্ত্বা )

খন্ডিত স্বত্ত্বা

আমি খান্ডত স্বত্ত্বা,
তোমার অর্ধেক আর আমার অর্ধেক
মিলে পূর্ণ সজীব।
তোমার স্বর তন্ত্রে, আমার মোহন তন্ত্রে
প্রবাহমান গানের স্রোত
ডাকে সর্বদা ইশারায়।

আমি অর্ধেক তোমার হৃদয়ের,
কল-কাকুলির মায়া-তানে
চলে গিয়েছিলাম দু্ইজন দুই সীমানায়-
এখন মিলিত মোহনায় চাঁদের আলো
ঝরে পড়ে-
তুমিও কি অর্ধেক নও?


Tuesday, September 10, 2013

Sopno Dekhi ( স্বপ্ন দেখি )

স্বপ্ন দেখি

আমি অবুঝ,
কখনো ভালবাসার মানে বুঝিনি
আমি অসত,
তাই ভালবাসা চাইনি-
তবে----, ভুলের মাশুল দিতে হয়েছিল সেদিন
যেদিন আমার হাতে দুটি গোলাপ ছিল তোমার দিকে চেয়ে,
অথচ তুমি ভেবে নিলে অন্য কাউকে দেবার জন্য এনেছি
বিশ্বাস তোমার কখনোই হয়নি-
আমি ভালবাসা হারিয়ে বুঝেছি,
আমি কষ্ট সয়ে কেঁদেছি,
আমি বুক ভাসিয়েছি শুধু তোমার কথা ভেবে
কিন্তু হায়! নিয়তি- আমায় বেছে নিল,
তোমার থেকে দূরে সরিয়ে
আজ অযথাই স্বপ্ন দেখি তোমাকে নিয়ে
আশার বালুচরে

Sunday, September 8, 2013

Kemon Valobasa ( কেমন ভালবাসা )

কেমন ভালবাসা


আমি ভালবাসি, 
কথাটি বলেও বোঝাতে পারিনি,
মনের গহীনে জায়গা কিনতে চেয়েও কিনতে পারিনি-
আমি কাঁটার মালায় ক্ষতবিক্ষত হয়েছি শুধু,
শুকনো মরুর নিরাশ বালুতে জলের সন্ধান করেছি,
কোন অধিকার নেই ভালবাসার।

আমি হেয়ালির বিষয়বস্তু,
আমি উপহাসের বিলাস সামগ্রী,
হৃদয়কে ছুঁতে পারিনা কখনো-
তবে----,
কোন একদিন বলেছিলে,
'পথিক, তোমার ঠিকানা কোথায়?'
ভুলিনি-
শীতের কুয়াশায় মেঠ পথ পাড়ি দেওয়া,
বর্ষার কাদা-জলে কদম,
চৈত্রের দুপুরে আমের মুকুল,
সবই এনেছি তোমার জন্য;
কিন্তু মনের ভাষা বুঝে না-বোঝার ভান করেছো।
তুমি কখনো আমার অভাবে কাঁদনি,
কখনো একান্তে ডাকনি,
তাই কখনো তোমার ভাবনায় আসিনি,
এক অজানা পৃথিবীর এই অজানা প্রাণি।


Saturday, September 7, 2013

Valobasar Golpo ( ভালবাসার গল্প )


ভালবাসার গল্প

আজো কিশোর বয়সে আমি
প্রেমের অথৈ নদীতে সাঁতার কাটি-
সপ্তসিন্ধু জয়ে তোমায় এনেছি আমার কুঠিরে,
তুমি আলো ছড়াও
মেল দু'টি আঁখি,
অজানার মাঝে পাড়ি দেব হাত দু'টি ধরে,
আমি কোন ভ্রুকুটিতে ভিত নই,
তুমি শুধু পাশে থেকো

আজো কিশোর বয়সে আমি-
কে বলেছে যৌবনের পরশ পেরিয়েছি,
সবে তো শুরু হল আমার ভালবাসার গল্প






Friday, September 6, 2013

Mukto Pakhi ( মুক্ত পাখি )

মুক্ত পাখি

আমি মুক্ত পাখির মত
ডানা মেলে উড়ে বেড়াই নীল গগনে।
ধান খেতে পালকের পরশ বুলিয়ে-
ছায়া-শীতল গায়ের মেঠপথে
ঘুরে বেড়াই এলোকেশ নিয়ে।

পাতায় পাতায় গান শুনিয়ে যাই
দুপুর রোদের তপ্ত হাওয়ায়;
স্নিগ্ধ আলাপনে ডিঙি নৌকা চড়ি
ভেসে বেড়ানো সরিষা ফুলের ধারে।

মাঠে-ঘাটে তেপান্তরে ছুটে বেড়াই-
আনন্দ-উল্লাসে নেচে উঠি মৌবনের কচি ডালে।
খেলার ছলে খেলে যাই, বাঁশপাতার কাগজে
আমার পালকে লেখা গোলকধাঁধাঁ।


Thursday, September 5, 2013

Tomay Chuti ( তোমায় ছুটি )

তোমায় ছুটি

আজ নতুন করে তোমার মনে ভালবাসার বীজ বুনলাম
আমার ভালবাসার জলাঞ্জলি দিয়ে।
আমার রিক্ততা, আমার ব্যর্থতা
কখনো ছোঁবে না তোমার সুখের রাজ্যের
কাশফুলের বিছানা।
ক'টি শুধু আশা, মেলে ধরেছে ডানা হৃদয়ে
তাই নিয়ে ফিরে যাব অন্য করিডোরে।

পিছনে ফিরে চাওয়া,
সুন্দর মেঘমালা ছোঁয়ানো আমার ভালবাসা,
আজকে দিলাম তোমায় ছুটি
অন্য গ্রহের কক্ষপথে।
ফিরে যেন না আসে আমার পৃথিবীতে
দুঃখভরা অমানিশার কালো মেঘ;
শুধু দূরাকাশে উড়ে বেড়াক
আকাশ ছোঁয়া কালো বেদনার পাহাড়।

আমার ব্যথার ভূমিতে গড়া তোমার সুখের স্বর্গরাজ্য
দিলাম উপহার,
সুখের আচ্ছাদনে থেক উন্নতির নব নব ধারায়;
ভালবাসা, আজকে তোমায় দিলাম ছুটি।


Wednesday, September 4, 2013

Bisonnota ( বিষণ্নতা )

বিষণ্নতা

দিনের শেষ হয়ে
এলো বুঝি বিষণ্নতার কামড়-
রোদেলা দিনের অনেক স্মৃতি ভাসে;
কোনটা রঙিন, কোনটা মলিন চাদরে মোড়ান,
কোনটায় ছিটে-ফোঁটা বৃষ্টির জল,
কোনটা আঁধার ভাঙা চাঁদের আলো-
মনে পড়ে
পা-দোলানো আম্র-কানন;
সত্যি, বড় বিষণ্নতা আজ চেপে ধরেছে
সীমাহীন অন্ধকারে।


কাঁদবার ইচ্ছেটুকু থাকলেও কাঁদতে পারি না,
সব জল শুকিয়ে গেছে সে-বেলায়।
কবে কার প্রেমের নেশায় উন্মুখ হয়ে
ডুব দিয়েছিলাম,
এই তো! তার সমাপ্তি ঘটেছে।

দিনের শেষে, আমি বড় একা , শূন্য আকাশে
একটি গাঙচিলের মতো;
ক্লান্ত হয়ে ফিরলেও বলার জায়গা নেই সে-কথা,
সবই ধোঁয়ায় সফেদ, রঙহীন ধূসর কুয়াশা-
আশাহীন দীপশিখা চেয়ে রয়েছে,
ক্লান্তির ঘুমে ঢলে পড়া আমার চোখের পাতায়।


Tuesday, September 3, 2013

Ae-to Somoy ( এইতো সময় )

এইতো সময়

ঘন ঘন রূপ বদলায়
মেঘ-রাজ্যের রাজকুমারী-
তাই অশান্ত হাওয়ার দোলার চড়ে আমি আসবো
সূর্য-রাঙ আবীর নিয়ে তোমার দুয়ারে;
অচেনার মাঝে চিনে নেবো
ছোট্ট স্বপ্নের রঙিন পরিচয়ে-
তুমি ঐ দূরে দাঁড়ি থেকো না আর।
তুমি আর বদলে যেও না!

আমি ভয় পাই, অন্ধকারে লুকানো
তোমার রূপ দেখে এই শ্রাবণে;
চাঁদের আলো নেমে এলে সন্ধ্যায়,
তুমি হারিয়ে যাও কেন অজানায়?
কতো কথা জমা হয় এ-বুকে
তুম নেমে এসো এই ধরায়।

ঝোপের জোনাকী, ঝিঁঝির চিত্কার
শংকিত করে অদ্ভূত মায়াবিনী সন্ধ্যায়।
রাজকুমারী, দেখা হওয়ার এতো মোক্ষম সময়,
তোমার আমার ব্যবধান ভেঙে
আজকের অজানা ঘন মেঘ-রাজ্যের নিরাবতায়।


Sunday, September 1, 2013

Kade Du-Chok ( কাঁদে দু'চোখ )

কাঁদে দু'চোখ

সন্ধ্যার আকাশে চাঁদ ওঠেনি,
অন্ধকারে ঢেকে গেল রাজপথ-
কোথায় তুমি হারিয়ে গেলে?
খুঁজতে খুঁজতে গভীর হয় রাত।

একবিন্দু ঘুমের তাড়নায় লিপ্ত নই-
আঁধারে মোমাবাতি জ্বেলে
             চেয়েছি শিখার দিকে,
সেখানেও অন্ধকার বাসা বেঁধেছে,
করেছে অজানা বায়ু আঘাত।

অনর্থক দেরি করিনি তো?
দিনের আলো নিভে যেতেই তো
            বসেছি দেখার আশায়!
তোমার অভিমান হয়েছে বুঝি?
---সীমাহীন যন্ত্রনা বাসা বঁধে বুকে,
কাঁদে দু'চোখ তোমায় না-দেখার বেদনায়।


Saturday, August 31, 2013

Asechi Fira ( এসেছি ফিরে )

এসেছি ফিরে


আমি বাদল ধারায় দেখেছি তোমায়
উন্মুক্ত খাঁচার পাখি রূপে
তোমার ঘরের শিখরে রাখা শিমের মাচানে,
জোছনার প্লাবন ঘটে যেথায় বারেবার।

আমি ঘুরে, ফিরে এসেছি
সমুদ্র-কিনার হতে,
তোমার স্বপ্নীল বাসনা পুরিতে;
কোথাও প্রাচীর দিওনা এঁকে

তোমার আমার মাঝ বরাবর।

আমি, এখানেই ঘুমোবো,
পাতায় জড়ানো আদরে
বাদলের রিনিঝিনি নুপুর পায়েতে
তুমি বসিও মস্তক নত করে।

কোথাও এক টুকরো শুষ্ক নেই
স্পর্শ-শীতল বর্ষন ধারার কোলেতে,
নন্দিত বিজলীর চমকে তুমি
আছড়ে প'ড় এ কোমল দু'টি বাহুতে।


Friday, August 30, 2013

Pan-Kowri ( পানকৌড়ি )

পানকৌড়ি

গোধুলির বিল ছাড়ি উড়ে যায় পানকৌড়ি
শত মাইল এভাবে দেয় তারা পাড়ি।
নীলিমার বুকে উড়ি, রেখে যায় পদচিহ্ন-
ধেনু রবে ফিরে যায় খেয়ে লতা-তৃণ।

আঁধার নামিছে চারিদিকে, নাই কোথাও দিশা
অবুঝ পানকৌড়ি ডাকে ভয়ে অমানিশা।
একাকি পথে যেতে যেতে বলিছে যেন কিছু
হারিয়ে ফেলিছে সব সঙ্গী, নেই কেউ পিছু।

শ্রাবণের নদী-কূলে নাই কোন তরী
চারিদিকে ঘন কুয়াশা যেন আন্দাজ করি।
নোঙর ফেলিবেনা কোন মাঝি এ-কূলে?
অচেনা লাগিছে সব, গেছে পথ ভুলে।


Nibedon ( নিবেদন )


নিবেদন

আমি তোমায় খুঁজেছি পাহাড়ি সমতলে,
মরুর তপ্ত বালুতে, সিন্ধু-সিংহলে,
সঙ্গিতে, জ্বলজ্বল করা নক্ষত্রের মাঝে
অসংখ্য প্রদীপ জ্বেলে সাঁঝে।

তোমার নিঃশ্বাস পড়েছে আমার বুকেতে
তুমি দুলে উঠেছো মন-আকাশ মেঘেতে।
আমি কল্লোলে মেতেছি,
তরুতে গেয়েছি,
প্রেমের সলীলে ডুবেছি-
তুমি অশান্ত করেছো আমায়
মোহনায় মিলিত নদীর মতো ইশারায়।

চন্দ্রের শুভ্রতায় চেয়ে দেখেছি
সেখানেও তোমায় খুঁজে পেয়েছি;
আমি খূঁজেছি বনানীর বুকে
একাএকা সুখে-দুঃখে
নদীটির ঢেউ গুনে গুনে মাঝির চোখে;
সবুজের ছায়তলে দাঁড়িয়ে
একগোছা রজনীগন্ধা নিয়ে
নিবেদন করিতেছি ভালবাসা আলোতে হারিয়ে।


Wednesday, August 28, 2013

Priotoma ( প্রিয়তমা )

প্রিয়তমা


আমি ভূমধ্যসাগর দেখেছি তোমার নয়নে-
তুমি সীমাহীন আকাশনীলা আমার ভুবনে।
স্বপ্নীল ভালবাসায় জড়ালে বাহুডোরে
আমায় নিয়ে যায় রবির আলো, কাক ডাকা ভোরে।
তুমি অনাকাঙ্খিত বৃষ্টির ফোঁটা, শীতল
প্রেমময়ী সাগরীকা সীমাহীন অতল।

আমি এলোচুলে বালুকার টুকরো দেখেছি
বিরামহীন নদীর নৌকা চলায় খুঁছেছি।
এই-তো ভালবাসার সিড়ি বেয়ে এলে
শূন্য ভুবনে অপরাজিত বাঁধনে জড়ালে-
আমি মুগ্ধ অনন্ত প্রেমময়ী রূপ দর্শনে
আমি তুষ্ট স্ব-গতির হাত চলা বাঁধনে।


Tuesday, August 27, 2013

Rup Nogorer Nagor ( রূপ নগরের নাগর )

রূপ নগরের নাগর



বাদলের হাওয়া বইছে প্রাণে
খুশি খুশি বউ, ডাকছে ও-খানে,
কইবে কথা সঙ্গোপনে-
আঁড়াল ক'রে চোখের পাতা
     দৃষ্টি করে চুরি-
লুকানো খাতা  ছিড়বে আজি
    প্রেমের দৌড়াদৌড়ি।


তুমি কোন-সে কূলের নাগর
         কইতে লাগে দেরি?
লাজ-তো আমার অনেক আছে,
     তোমারটা দেখে মরি;
চেয়ে দেখ আঁখি আমার হরিণীরূপ ডাগর,
ও-গো তুমি চাওনা ফিরে রূপনগরের নাগর।


রাজ কন্যে বধূ আমার,
বাদল দিনে শুকায় কেন বুক?
প্রেম-দিওয়ানা হইলে মনে
           মিটিত সকল সুখ।


আসলে কাছে বুঝবে তবে
     প্রেমের হরেক রূপ,
বাসর ঘরে বুঝবে ঠেলা
        প্রেমের অনল-কুপ।


Monday, August 26, 2013

Sondha Tarar Alota ( সন্ধ্যা তারার আলোতে )

সন্ধ্যা তারার আলোতে


তুমি ভেসে এসেছো রাতের আকাশে
             অখন্ড গোলাকার মূর্তিতে;
আমি প্রদীপ জ্বেলেছি সন্ধ্যার বাতাসে,
নিভে গেল দারুন গতিতে।

এ-আলো তোমার রূপের করাতে,
এ-রাত তোমার স্বপনের ছোঁয়াতে
ভ'রে উঠেছে অসংখ্য বাতির সম্প্রীতিতে।
সেই চঞ্চল হাওয়ায় মৃদু কাপন
আলোড়িত নদীর পানির ঢেউয়েতে
       সবাই করে মৃদু আলাপন।

তোমার হাতে এ-হাতটি শুয়ে আছে
      সন্ধ্যা-তারার আলোতে-
আমি সম্পূর্ণ, আমি ধন্য
তোমায় পেয়ে এ-পৃথিবীতে---।


Sunday, August 25, 2013

Firta Chay ( ফিরেতে চায় )

ফিরেতে চায়


শুকনো পাতা- ভিজে গেলো কুয়াশায়
        দুলে সজীবতার নেশায়;
              তবুও হয়নি সজীব-
এ-যেন মিথ্যে আশায় বেঁচে থাকা
            রহস্যূময়ী আ-জীব।

প্রাণ নেই, শষ্কতা
    সবুজ নেই শুধু জড়তা
ঘিরে আছে- অনেক দিনের বার্তা
লেখা আছে পাতার খামে- অনেক ব্যর্থতা
প্রশাখায় জড়িয়ে কেঁদে ওঠে
            নির্মম দু'টি ঠোঁটে।

আর হবে না বৃক্ষে ফেরত যাওয়া,
আর হবে না বাতাসে দোল খাওয়া।
শুকনো পাতা ঢেকে গেল আরো পাতায়;
শক্তি ফুরিয়ে নিঃশ্বাস থেমে যায়,
আবার বাতাসের কম্পে উঁকি দেয় মনে-
ফিরতে চায় বৃক্ষের সবুজদীপ্ত বনে।


Saturday, August 24, 2013

Niotir Khel ( নিয়তির খেল )

নিয়তির খেল


সাদা পাঁপড়ী দোলানো শাপলা ফুল
তুলে এনেছিলাম সেই উত্তরের ঝিল থেকে,
তুমি দেখতেও চাইলে না;
চাঁদের মতো চেয়ে থাকা ফুলগুলো
ফোটাতে পারিনি মুখের হাসি-

কান্না এসেছিলো দু'চোখের পাতায়,
নিয়তির হাত থেকে ফেরাতে পারিনি,
স্তব্ধ হয়ে গেলো আকাশটা মুহুর্তে।
কোন খেলায় মেতেছো আজ বলতে পারো?

এ হাত, ও হাত,
স্বপ্নের দিন গুনে কেটে যায়-
শুধু শুধু বেঁচে থাকা,
কষ্টকে বুকের মাঝে পুষে রাখা।
আরেকটা হাতের প্রত্যাশা-

ভুল-ভ্রান্তি সবই বিচ্ছেদের কারণ।
বিন্দু শিশির হলেও পা-কে ভিজায় 
কিছুটা পদক্ষেপে।
বারবার প্রত্যাশার হাতকড়া পরতে
অস্বস্তি-ঘৃণা জন্মায় অন্তরের চিলেকোঠায়,
এবার তার নির্মূল হবে অতল পানিতে।


Friday, August 23, 2013

Rongo Moncho ( রঙ্গমঞ্চ )

রঙ্গমঞ্চ


শৈশব রবি'র সোনালী কিরণে
সবুজ ঘাস চিকচিক করে উঠে,
হাত ছোঁয়ালেই শীতল দোলা দেয় অন্তরে-
রবি-তাপে তুমি চুপসে যেওনা;
বড়ই ক্ষণিক তোমার প্রকৃতি।

কৈশরে বৃষ্টি-ঝরা আকাশ, সবুজে ভরা মাঠ
প্রিয়া, তুমি দাঁড়িয়ে থেকো না
নেমে এসো বর্ষার রিনিঝিনি ছন্দে।


যৌবনা, তুমি মধ্যাহ্ণে,
ঠিক যেন মাথার উপরে,
তোমাকে দেখলে নয়ন ঝলসে যায়-
কতো রূপ আর তেজদ্বীপ্ততা।
এ যেন প্রকৃতিতে রঙের মেলা।

হিসেবের পড়ন্ত বিকেল , কমলার ছটা,
দীপের ক্ষীণতা, পাখিরা ঘরে,
শুধু তোমায় দেখার অপেক্ষায়।

বার্ধক্যের প্রান্তরে বৃক্ষরাজিতে মিলিয়ে গেল,
চতুর্দিক নিস্তব্ধ, অন্ধকার।
ঝিঁঝি পোকা ডেকে উঠেছে
ফসল নষ্ট করতে,
সেখানে রজনী হয়েছে সঙ্গী।


Thursday, August 22, 2013

Sopner Vubone ( স্বপ্নের ভুবনে )

স্বপ্নের ভুবনে


অনন্ত ভালবাসা জেগে থাকে হৃদয়ে
কখনো উঁকি দেয়- কখনো বা দুঃসময়ে।

যখনি আধার আসে নীলিমার বুকে
মধুর রাত্রি- ভালবাসে দু'চোখ দেখে।

স্বপ্ন এঁকে যায় অজানা পরী
সেথায় দুয়ে মিলে মনের ভুবন গড়ি।

বেদনারা দূরে যায় ভালবাসার ছোঁয়ায়
হাত ধ'রে যবে বসি চন্দ্রিমার আভায়।
দীপজ্বলে সন্ধ্যায় দেবতার প্রীতিতে
মন ভাবে ভালবাসা পুজনীয় স্মৃতিতে।
সুখ নয়, অসুখ নয়, ভালবাসা শুধু
এ-যেন অমৃত, না-হয় মধু।


Bedonar Dhew ( বেদনার ঢেউ )

বেদনার ঢেউ


আমি আশার বুকে বেদনার ঢেউ তুলে
আছড়ে পড়বো সুখের কিনারায়
অনাবিল কাঁশফুলের দোলায়;
মত্সর ফুর্তিতে তোমার বসবাস শোভা পায়-
আমি লুকিয়ে থাকি শ্বেত শঙ্খের গহ্বরে,
মেঘেতে ক্রন্দন আনি অঝর ধারায়,
আরো ঝড় তুলবো স্বপ্নের বিছানায়;
তুমি শাঁখের করাত হয়ে ভ'রো ছলনায়।

আমি কলমী লতার ফুলে দোলা দিয়ে
বাতাসে ভেসে করবো তোমায় আলিঙ্গন,
তুমি অস্ত্রধারে বিচ্ছেদ ক'রো
বিবাদের ঘন বরষায়;
আমি অনন্ত আকাশের বালিহাঁস,
বাতাস দিয়ে যাবো,
মৃদু মৃদু দু'চোখের পাতায়;
তুমি খবর নিয়ো আমায় দেখার আশায়।

আমি কোলাহলে হাসির মাঝে
কণ্টক জড়ানো গোলাপ-রূপে তোমায় দেখবো
ছুঁ'তে চাইবো না হৃদয়ের টানে
নিজেকে ভরিয়ে দিতে বেদনায়-

আমি চন্দ্রনীলের আধারে উঁকি দেবো
বাক্স ভর্তি উড়ো চিঠির ঠিকানায়,
আর রইবো না তোমার সাধনায়-
তুমি যত পারো ভরিয়ে দিয়ো যাতনায়।


Tuesday, August 20, 2013

Mon Chaiche ( মন চাইছে )

মন চাইছে

বৃষ্টিতে ভেজা কদম,
সৌন্দয্য ঘেরা প্রকৃতি-
তোমার স্পর্শ মিশে থাকে হাজার রেনুতে;
অনাকাঙ্খিত বার্তা নিয়ে আমি ছুটে আসবো তোমার দুয়ারে
কদম আহরনে।

সুখ সন্ধিক্ষণে আপন বিলিয়ে
দুটি বাক্যে খুঁজে নেবো পরিচয়ের দুর্লভ প্রাপ্তি-
এই বৃষ্টিতে যার মাধুয্য ছুঁয়ে যায় মন,
তার সম্মুখ হতে ফিরে
বড় মুগ্ধ হয়েছি ভালবাসার প্রতি।
হলদে কদম তরুর বনে, মেহগনির ছায়ায়
আর একবার দাঁড়াতে মন চাইছে।

Monday, August 19, 2013

Moddho Rater Chad ( মধ্য রাতের চাঁদ )

মধ্য রাতের চাঁদ


এখনো রজনীগন্ধার সুবাস ফুরাইনি,

গোলাপটি ফোটার জন্য প্রস্তুত

      কাননের এক কোণে লুকিয়ে থাকা ডালে।

---শুধ আমার প্রিয়া কাঁদছে বলে

আমি ঘুমোয়নি-

স্বপ্নটা ভেঙে গেল মেঘেদের অশ্রু-জলে।



ধীর-চলা শামুকের পায়ে পায়ে ভালবাসার যাত্রা,

অনেকে বকুলকে মালা গেঁথে পরেছিল

শুকনো ঘাসের বুক থেকে কুড়িয়ে......



কোথাও ঠাঁই মেলে নাই-

একাকী নীরবে মেঘের আঁড়ালে লুকাতে চায়,

শুধু মিথ্যে আশ্বাসের তারকায়।

অস্ত গেছে কখন, সেই সূর্য!

এখন মধ্য রাতের চাঁদও যেতে বসেছে,

তাই অশ্রুঘন বরষা নামে নয়নের পাতা-জুড়ে

গভীর রাতের সাধনায়।



Sunday, August 18, 2013

Ajanay Pari ( অজানায় পাড়ি )

অজানায় পাড়ি


তোমার ঠিকানা আমার জানা নেই-
বাইর দুয়ারে শুধু কড়া নেড়ে যায়
             অচেনা লোক;
জেনেছি যেটুকু,
তাতে ঘর বাঁধা যায় না,
তাতে কাছে আসা যায় না।
কারণ, আমার ডাক তুমি শুনতে পাবে না,
তোমার আমার মঝে অনেক দুরত্ব-প্রাচীর-

কিভাবে ডাকবো তোমায়?
তুমিতো দাওনি তোমার ঠিকানা,
শুধু আমারি কথা ছিল,
       ছুটে যাওয়ার।

আশার প্রহর গুণে দেখা মেলে না,
মেলে না তোমার সৌরভ;
ফিরে এসেছি তাই রিক্ত হাতে,
আপন ঠিকানায়,
      আপন কুঠিরে।


Saturday, August 17, 2013

Tomay Harate Debo Na(তোমায় হারাতে দেব না)

তোমায় হারাতে দেব না

কত সাধনায় পেয়েছি যাকে
তাকে হারাতে চাই না রাজ্য পেলেও;

মমতাজই হোক আর সাজাহান হোক
আমিও কম নই কিছুতে-
আমারও জমিন আছে
         কোটি একর, বুকেতে।
তাজমহল নয়, উষ্ণ আদরের বাড়ি
সোনা-দানা নয়, আছে শুধু জড়ি।

আমি নিঃস্ব হতে পারি, তবে কাঙাল নই
প্রেমের রাজ্যের বীর সৈনিক
                    ভালবাসায় থৈ থৈ।

আমারও স্বপ্ন আছে তাকে ঘিরে,
না-হয় পাবো না প্রতিদান
           শিরি-ফরহাদের মতো মরে।
তবুও ছেড়ে যাবো না তাকে
                রাখবো বুকেতে ধরে।


Friday, August 16, 2013

Ami Chol-lam ( আমি চললাম )

আমি চললাম


আমি দুঃখিত-
তোমার ব্যস্ততার মাঝে বিরক্ত করে
অনেক মূল্যবান সময়কে নষ্ট করে দিয়েছি;
ভেবেছিলাম,
বিকেলের অবসরে তুমি বসে আছো
সবুজ বনানী-ধারে এক মুঠো কাঁশ ফুল হাতে নিয়ে।
তাই তোমার সামনে এসে দাঁড়িয়েছি-
বিকেলে নদীর না পেয়ে।

এখনো বেণীটা বাঁধোনি তুমি?
চোখেতে কাঁজল আঁকোনি?
শুধু নীরবে দাঁড়িয়ে কেন?
খুশি হওনি আমায় দেখে এ সময়ে?

ঠিক আছে!
চলেই যাবো, দূরে---- বহুদূরে কোথাও।
আমিতো ভিন্ন মানুষ, মেশে না তোমার সাথে,
অনেকের চোখের কাঁটা, ইদুর- কপালে আমার-
আমি চললাম অসীমের কল্পনা থেকে শত যোজন দূরে....
একবার শুধু ফিরে তাকাও!

Thursday, August 15, 2013

Andhokar Valo Lage (অন্ধকার ভাল লাগে)

অন্ধকার ভাল লাগে

তোমার সাথে ভাবটা
          আমার জমে উঠেছে-
     আগে দেখা হয়নি বলে
কথাগুলো স্মৃতির অতলে তলিয়ে ছিল,
      এখন উন্মিলিত হয়েছে ।

তোমার হৃদয়ে অবস্থান করি
           তোমার প্রেমে উদ্ভাসিত আমি-
দীঘল চোখের মায়া জড়ানো হাসি
     সপ্তসিন্ধু পার করে এনেছে আমাকে ।

তোমার সাথে ছন্দ পাতিয়েছি
     তোমার সাথে নিজেকে জড়িয়েছি
অদ্ভূত ভালবাসার বন্ধনে ।

রূপের জোয়ার তোমার নাইবা থাকলো,
      ভালবাসা তো আছে অন্তরে!
না---কি ভুল বললাম?

সবাই সবাইকে ভালবাসে না
                    আমিও তেমনি-
শুধু তোমায় ভালবাসি;
                  অন্ধকার ছায়ার মতো
তুমিই তো আলোটাকে চেনালে।
    তুমি বিনা আলো মূল্যহীন,
তাই অন্ধকার আমার ভাল লাগে।

পৃথিবীতে এমন অনেকেই আছে, যারা অনেকের কাছে দেখতে সুন্দর না। সেই দেখতে সুন্দর না ব্যক্তিগন( মেয়েরা ) নিজেদের অনেক পাপী মনে করে। কিন্তু এতে তাদের কোন দোষ নেই। আমরা সবাই মানতে পারি না আলোর নিচে অন্ধকার থাকে, অন্ধকার বিহীন আলোরও তেমনি মূল্য নেই।



Kotha Kow (কথা কও)

কথা কও


সন্ধ্যা তারার কোনটাই জ্বলেনি-
               দীপ জ্বলেছিল সাঁঝে ?
আসতে দেরি হয়ে গেল বুঝি, পার্বতী!
- না এখনো চলছে
        টিক টিক ঘড়ির আওয়াজ
        হাতের উপর-

কখন সন্ধ্যে হয়ে গেল
        বুঝিনি ধুম্রজালে জড়ানো অচেনা শহরটাতে,
     অন্ধ হয়ে গিয়েছিলাম রাজপ্রাসাদে চেয়ে থেকে-
    একটুখানি করোনা সবুর!

        কোথায় তোমার খালি হাতটা?
দেখ, সোনার বালা এনেছি,
       অযথা শুয়ে থাকার মানে হয় না-
                      সাজাও না ঘরটা।

কৈ, থেমে গেলে যে!
               কথা কও,
ও----- এই বালা বুঝি পছন্দ হয়নি?
        নাকি অভিমান করেছো দেরি হতে দেখে,
একবার দু'নয়ন খুলে কথা কও!



Wednesday, August 7, 2013

Aso Sobai (এসো সবাই)




Eid Upohar (Ma) =>ঈদ উপহার (মা)

ঈদ উপহার (মা)

আমি অসছি-

      ঈদের শাড়ী, বোনের ঘড়ি
সবটাই কিনেছি, নিজেরটা ছাড়া।

আদরের সবটাই জমিয়ে রেখেছো-
         আমি ফিরছি বলে
এখনো পথ চেয়ে বসে আছো ভাঙা দুয়ারে।

এই তো কয়েকটা দিন,
          ছোট ভাইটার পাঞ্জাবি,
বাবার একটা জায়নামাজ-
এখনো কিনতে পারিনি লাল রঙের চুড়িগুলো

ভেবো না, সবটাই জোগাড় হয়ে যাবে,
         তোমার দোয়ায় সবটাই পারবো,
শুধু, আর কয়েকটা দিন!



Tuesday, August 6, 2013

Moner Mitali (মনের মিতালি)

মনের মিতালি

আজ বরষায় অন্যরকম আমেজে
সেজেছো তুমি, মনের মিতালী মিতু-
ঘন-কালো অন্ধকার করবীতে
হাসনাহেনার সুবাস
আমাকে করেছে ব্যাকুল-
আমি আলোতে পথ হারিয়ে ফেলি
তোমার নয়ন-পানে চাইলে


এখনো ভাবার কিছু নেই,
প্রেমে পড়েছি তোমার কালো চুলের
সুগন্ধ জড়ানো হাসনাহেনার সাদা ধবধবে পাপড়ীর
মনের মিতালী মিতু-
স্বপ্নের মধুর অনুক্ষণে তোমার নয়নদ্বয়
উজ্জ্বল হাসিতে ভরে ওঠে,
সেই অনুক্ষণে আমার একটুকরো
প্রীতি শুভেচ্ছা উপহার রইলো মিতু


Monday, August 5, 2013

Valobasar Ful-bagan (ভালবাসার ফুল-বাগান)

ভালবাসার ফুল-বাগান

সকল তারকা আকাশের

তোমার দিকে তাকিয়ে আছে রূপের মায়ায়
অসংখ্য, অজস্র মেঘমালা
ছোঁয়া দিয়ে যায়,
দেখা দিয়ে যায় ভালবাসার ছোট্ট নীড়ে।

আমার দৃষ্টি তারকাতে গিয়ে ফিরে আসে
তোমার মুখটা দেখে।
তোমার প্রতিচ্ছবি ভাসে ওই তারকায়
তোমার দু'চোখ দেখি ওই তারার মাঝে।

মর্তের শশী, 
তুমি আকাশ-তারকার দেবী
এ-ভূবনের শশী তুমি
আমার হৃদয়ে তাই তোমার বসবাস।

জ্যোতিষ্ককে দূরে ঠেলে তুমি মর্তে নেমেছো
তুমি চঞ্চলা, তুমি সুন্দর, তুমি অপরূপ স্বর্গ পরী-
আজকে তোমায় নিয়ে হবে
আমার নতুন দিনের শপথ,
নতুন করে উদ্ভাসিত হবে
তোমার আমার ভালবাসার ফুল-বাগান।

Thursday, August 1, 2013

Asomo Prem (অসম প্রেম )

অসম প্রেম

বয়স একত্রিশ- তুমি আমার প্রিয়তমা
ভালবেসে বসাইনি দাড়ি, বসিয়েছি কমা।
তুমি আমার প্রিয়তমা, তুমি যে প্রাণ
আশায় বেধেছি বুক, ভালবাসার টান।

বয়স একটু বেশি- দিলে না মূল্য আমায়
কি-বা এসে-যায় - ভালবাসি শুধু তোমায়।
তোমায় দেখে পাগল- সমুদ্রের বুকে ঢেউ
এ ভালবাসা তোমায় দিতে পারবে না কেউ।

বয়স একুশ- আমি তোমার প্রিয়তম
তাই তোমাকে, এটাই কি শুধু ভ্রমো।
আমি তোমার প্রিয়তম, শূন্য হাত ফেরালে
মানুষ মনে হয়নি, তুমি এ-কি করলে।

বয়স একটু বেশি, মেনে নাওনি হৃদয়ে
শুনেছো...! ভালবাসা মানে না বয়স- এরূপ যুদ্ধ জয়েও।
বীর সে-তো বীর, বয়সে কি এসে-যায়
মর্যাদা দিলে না, এইরূপ ছোট্ট তারকায়।

ভালবাসার সম্মুখে দাঁড় করালে দেয়াল
হৃদয় থেকে ভাবো, বশে নয়তো খেয়াল।
ভালবাসি শুধু, দেখিনি বয়স তোমার
এটা অপরাধ, বলেছো তুমি- প্রার্থী ক্ষমার।

কেন তুমি ভালবাসা- মন দিলে বিধাতা
মন যদি তুমিই দিলে, তুমিই হবে ত্রাতা।
একত্রিশ, ভেবে দেখ অন্তরায় গোপনে
বিয়ে ক'রো পঁয়ত্রিশ, আমায় রেখে মরণে।


Wednesday, July 31, 2013

Potho Chea Thaki (পথো চেয়ে থাকি)

দিনের শেষে অবশেষে, আজিকে এ সন্ধ্যায়
কষ্ট দেখি মনের ভিতর, কে আমায় কাঁদায়।
উকিঁ দিয়ে তাকিয়ে দেখি, মনের ঘরের কোণে
সারাদিনের জমে থাকা দুঃখ কে গোনে।

একটু পরে প্রদীপ জ্বলবে, আঁধার চারিদিকে
সূর্য মামা পাটে গেছে, হলুদ রং ফিকে।
তোমার কথা ভেবে ভেবে মনে লাগে কষ্ট
মাঝে মাঝে আঁকড়ে ধরে আমায় অ-দৃষ্ট।

অবণীর মাঝে দুষ্ট বায়ু, বুকের মাঝে পাষাণ
দিনের আলোয় শুকিয়ে গেছে, ভরা নদী শশ্মান।
দুঃখ সয়ে কষ্ট পাই, হৃদয়ে লাগে ব্যথা
সন্ধ্যার সময় মনটা খারাপ, কই না কোনো কথা।

দিনের শেষে রাত্রি বেশে, আঁধার নামে ঘরে
কেমন করে বুকের ভিতর, তোমায় দেখার তরে।
ফিরে এসো আমার নিকট, নয়ন-পাতা ভিজে
কষ্ট পাই এখন আমি, ক্ষমা করো বুঝে।

শিয়াল ডাকে ঝোপ-ঝাড়ে, সন্ধ্যা নেমেছে ওই
বসে আছি একা একা, তুমি বন্ধু কই।
দুয়ার খুলে পথো চেয়ে, আমি থাকি একা
দিনের কথা ভুলে যাও, ফিরে এসো সখা।

হৃদয় মাঝে অনুভূতি মোর, নয়নে দেখি তোমায়
মনটা আমার কেমন করে, সন্ধ্যা যে কাঁদায়।
দুপুর বেলা বলেছি যা, ফিরিয়ে নিলাম বাক্য
অভিমান ভুলে ঘরে এসো, করতে চাই ঐক্য।

আমায় তুমি স্বস্তি দাও, ভুলে যাও দুখ্
পাশে বসে আমার তুমি, মনে আনো সুখ।
জ্বরে আমার শরীর পোড়ে, এসো-না ফিরে তুমি!
চোখের জল মুছিয়ে দাও, আমার প্রাণের স্বামী।


Last 7 Days!

App